শীত-গ্রীষ্ম উভয় সময়ে পড়া যাবে!

Print

শীতের দিনে জাম্পারের মতো শীতবস্ত্র পড়ি আমরা। শীত চলে গেলে ওই কাপড়ের আর প্রয়োজন পড়ে না। তবে বিজ্ঞানীরা এমন এক ধরনের জ্যাকেট তৈরি করেছেন, যা শীত কিংবা গরম উভয় সময়ে পড়া যাবে। বিশেষ ধরনের কাপড়ে তৈরি এই জ্যাকেট নিজ থেকেই উষ্ণতা তৈরি করতে পারে আবার নিজে থেকেই উষ্ণতা কমিয়ে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় ফিরে আসতে সক্ষম।

স্পোর্টসের পোশাকে যে উল ব্যবহার করা হয়, সে উলের উপরই কার্বন ন্যানোটিউব ব্যবহার করেছেন বিজ্ঞানীরা। এই কার্বন ন্যানোটিউব মানুষের চুলের চেয়েও কয়েক লাখ গুণ পাতলা। বিজ্ঞানীরা বলছেন, বর্তমানে যেসব স্বাস্থ্যসম্মত স্পোর্টসের পোশাক আছে, সেগুলোর চেয়ে নতুন এই পোশাক অনেক বেশি উন্নত। নতুন এই পোশাক দেহের তাপমাত্রা ৩৫ শতাংশ পরিবর্তন করতে পারে। বর্তমানে প্রচলিত স্পোর্টসের পোশাকগুলো দেহের তাপমাত্রা পরিবর্তন করতে পারে মাত্র ৫ শতাংশ। যে ধাতুর মাধ্যমে এই কাপড় তৈরি করা হয়েছে, তা সহ অন্যসব পোশাকের মতোই এই কাপড় নিয়মিত ধোয়া সম্ভব।

আমেরিকার ইউনিভার্সিটি অব ম্যারিল্যান্ডের প্রফেসর মিন উয়াং বিশেষ ধরনের ধাতব পদার্থ দিয়ে নতুন এই কাপড় তৈরির পদ্ধতি আবিষ্কার করেছেন। তিনি বলেন, ‘যেকোনো পরিবেশে মানুষকে আরাম দেয়ার উদ্দেশ্যেই এই বিশেষ কাপড় তৈরি করা হয়েছে। অফিসে বসে কেউ যদি গরম বোধ করে, সে সময় এয়ার কন্ডিশনার চালু করার প্রয়োজন নেই। এই কাপড় পরা থাকলে এমনিতেই ধীরে ধীরে ঠান্ডা বোধ হবে।’ এই বিশেষ কাপড়ে থাকা কার্বন ন্যানোটিউব মানুষের শরীরের উষ্ণতা, ঘাম শনাক্ত করে। এরপর ওই কাপড় সংকুচিত হয়ে এক ধরনের ইলেকট্রিক চার্জ তৈরি করে, যা শরীরের উষ্ণতা কমায়। তবে পরে যখন আপনি আবার ঠান্ডা অনুভব করেন, তখন ওই কাপড় নিজ থেকেই আবারো প্রসারিত হয়ে বাইরে থেকে উষ্ণতা নিয়ে আসবে শরীরে।

এর আগে জাপানের প্রযুক্তিবিদরা তৈরি করেছিলেন এয়ার কন্ডিশন্ড জ্যাকেট। তাতে জ্যাকেটের পেছনে দুটি ফ্যানযুক্ত করা হয়। তবে নতুন এই পোশাকে কোনো ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়নি। নতুন এই প্রযুক্তি দ্রুত কাজ করতে সক্ষম, বলছেন বিজ্ঞানীরা। আমেরিকান একটি কোম্পানি এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আগামী দুই বছরের মধ্যেই নতুন পোশাক বাজারে নিয়ে আসবে বলে জানা গেছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 69 বার)


Print
bdsaradin24.com