সময় থাকলে ঘুরে আসুন পানাম সিটি, সোনারগাঁও, নারায়ণগঞ্জ

Print

পানাম সিটি, সোনারগাঁও, নারায়ণগঞ্জ

পাঁচ জনের দল ঘুরে এলাম সুলতানী আমলে বাংলার রাজধানী থেকে, ‘সুবর্ণগ্রাম (সোনারগাঁও)’ ও তৎসংলগ্ন অভিজাত বাসযোগ্য নগরী “পানাম সিটি” থেকে।

বিশ্ববিখ্যাত মোঘল সম্রাট আকবরের দুর্ধর্ষ সেনাপতি মানসিংহ বাংলার যে রাজা ও জনপদের কাছে পরাজিত হয়েছিল তা আজ মৃতপ্রায় এক নগরী। সোনারগাঁও থেকে আফগানিস্তান পর্যন্ত শের শাহের ঐতিহাসিক ‘সড়ক-ই-আযম’ (গ্রান্ড ট্রাঙ্ক রোড), বাংলা জনপদের নাম প্রথম ”বাঙালাহ” নামকরণ, ইবনে বতুতার সফর, বাঙালীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ গর্বের ধন ‘মসলিন’ কাপড় বুনা হত যে অভিজাত প্রাচীন শহর থেকে, তা-ই আজ নিরবে দাঁড়িয়ে আছে কিছু ক্ষয়ে যাওয়া ভবন, তিন দিকে বয়ে চলা জলস্রোত এবং মাটির বুকে ‘ঈশা খাঁ’, ‘গিয়াস উদ্দিন আযম শাহ (রহঃ)’, ‘শামসুদ্দিন ইলিয়াস শাহ’ এর মত বীর সন্তানদের স্মৃতি ধারণ করে।

ধানমন্ডি-৩২ থেকে বাসে বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেইটে নেমে ৬০ টাকায় “বোরাক এসি বাস সার্ভিসের” টিকেট কেটে ভিতরে প্রবেশের ঠিক পূর্ব-মুহূর্তে খানিকটা অবাক হয়ে রইলাম…!! এই গিঞ্জি গুলিস্তান এলাকায় সকল যাত্রীর চোখেমুখে এবং পোষাক-পরিচ্ছদে কেমন যেন একটা উৎসব-মুখর ভাব সুস্পষ্ট। মনের গভীরে একটা অপ্রত্যাশিত ভালো লাগা নিয়ে আমার সীটে বসে পড়লাম। ফ্রি ওয়াই-ফাই সুবিধায় কখন যে সোনারগাঁও এসে পড়ল টেরই পেলাম না। সাকুল্যে সময় নিল ৪৫ মিনিট। নামছি আর দেখছি বাসের প্রায় সবাই নেমে সিএনজি, অটোরিকশা বা রিক্সায় সোনারগাঁও এর পথ ধরছে। ভাড়া জন প্রতি ১০ টাকা, সময় নিল প্রায় ১০ মিনিট। বুঝা গেল বাসের যাত্রীগণ আমাদের মতই বেড়াতে এসেছেন, তাই এমন পরিপাটি বেশভূষা ।।

৩০ টাকায় প্রাচীন রাজধানীর মূল চত্ত্বরে প্রবেশের অনুমতি মিলল। রাস্তা শুরুর বাম পাশে রাজ-প্রাসাদের পুকুর-ঘাট। রাজাদের ঘাট বলে কথা..!! ছবি তোলার লোভ সামলানো বেশ কঠিন। এগিয়ে যাচ্ছি, চোখে পড়ল বংগবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাস্কর্য, জয়নুল আবেদীনের ভাস্কর্য, শিল্পকর্ম ও লোকশিল্প জাদুঘর। তিন তলাবিশিষ্ট জাদুঘরে ভিন্নভিন্ন জেলায় বিভিন্নভাবে প্রাপ্ত জিনিসাদি দেখে লাইব্রেরি ঘেঁষে লেইকের উপর বাঁশের তৈরি সাঁকোতে কিছু সময় পার করে সোজা তাঁতপল্লীতে ঢুকে পড়লাম। ইতোমধ্যে জুম্মার আযান হয়েছে ।।

নামায ও খাওয়া শেষে পানাম সিটিতে প্রবেশ। এবার টিকিট মিলল ১৫ টাকায়। প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের তত্বাবধান বলে একটা ব্যাপার-স্যাপার আছে হয়ত…!!
প্রবেশ পথের শুরুতেই অবিশ্বাস্য, অকল্পনীয়, অদ্ভুত সৌন্দর্যমন্ডিত দৃশ্যের সামনে পড়ে কিছুক্ষণ বিহ্বল হয়ে রইলাম। যে কেউ যে বিহ্বল হবে এতে কোন সন্দেহ নেই। সুনিপুণ দক্ষতায় তৈরি প্রায় ৬০০ বছর পুরনো শহর এখনো দাঁড়িয়ে আছে ইউরোপীয় ও মোঘল স্থাপত্যশৈলীর মিশ্রণে ক্ষয়ে যাওয়া ৫২টি নান্দনিক ভবন, মসজিদ, মন্দির, মঠ, ওয়াচটাওয়ার, নাচঘর, বিচারালয়, শান-বাঁধানো ঘাট, পর্যাপ্ত পানির কূপ ও পয়নিষ্কাশন ব্যবস্থার অবশিষ্টাংশ নিয়ে। পৃথিবীর প্রায় ১০০টি বিলুপ্তপ্রায় নগরীর একটি এই পানাম নগর। এখানকার নদী বন্দরে থাকত বিশ্ব বাণিজ্যের ব্যস্ততা। লন্ডন থেকে আসত থানে থানে থান কাপড়, দেশ থেকে পাঠাত গর্বের ধন ‘মসলিন’। সত্যি বিচিত্র অনুভূতি। বিস্মিত না হয়ে উপায় নেই।

শ্যাওলা ধরা ভবনের সাথে, ছোট-ছোট কুঠুরিগুলোর পাশে, ভেঙে ভেঙে জানালাগুলোর দরজা আকৃতিতে এসে পড়া দেখে গ্রুপের সকলেই থমকে থমকে সবিস্ময়ে গৌরবান্বিত ইতিহাসের স্বাক্ষী হবার প্রচেষ্টায় ফটোসেশন নিয়ে ব্যস্ততার মাঝেই আসরের আযান হল। যামাত ধরার ইচ্ছায় সবাই বেরিয়ে পড়লাম ।।

পূর্বেকার বাসে গুলিস্তানের পথ ধরে কিছু জানার অভিপ্রায় নিয়ে সকলের মুখের দিকে তাকালাম এবং বুঝলাম প্রতিটি মুখে তৃপ্তির ছাপটা বুঝার জন্য খুব বেশি জ্ঞানী হবার প্রয়োজন নেই, আলহামদুলিল্লাহ ।।

যাদের এখনো যাওয়া হয়নি অনুরোধ করব খুব শীঘ্র ঘুরে আসুন। ছোট-খাটো একটা ভুমিকম্পের ফলে ঝুরঝুর করে ধ্বসে পড়ার আগেই আমাদের বিস্ময়কর সোনালী ঐতিহ্য দেখে আসুন___’‘তোমরা ভ্রমণ করে তাঁর (আল্লাহর) অভিনব সৃষ্টিরাজি অবলোকন করো।” [সূরা আনকাবুত : ২০]
অন্য দিকে ভ্রমণ করে সঠিক পথের সন্ধানী হতেও নির্দেশ দিয়েছেন। আল্লাহ বলেন : “তোমরা পৃথিবীতে ভ্রমণ করে দেখো মিথ্যাচারীদের পরিণতি কেমন হয়েছে?” [সূরা আল আনআম : ১১]

খরচ ঃ স্ন্যাকস, মিনারেল ওয়াটার, রাজার হালে দুপুরের খাবার ও এ/সি গাড়ীতে ভ্রমণের পর ৪১০ টাকা জনপ্রতি ।।

ভ্রমণের স্থানে আপনার পায়ের ছাপ ছাড়া অন্য কিছু (চিপসের প্যাকেট,পলিথিন, হাবিজাবি) রেখে আসবেন না। সম্পদ আপনার, রক্ষার দায়িত্ব আপনার।

ছবিঃ ইন্টারনেট

[ লেখাঃ মহীউদ্দিন রাসেল ]

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 266 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com