সেবা নিয়েছেন তিনবার, টাকা কেটেছে সাতবার

Print

গ্রাহক রবিউল ইসলাম মুঠোফোনে ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস নিয়েছিলেন তিনবার। তাঁর ব্যালান্স থেকে টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে সাতবার। অভিযোগ করার পরও তিনি টাকা ফেরত পাননি।

এখানেই শেষ নয়, ইন্টারনেট প্যাকেজ কিনতে না পারার বিষয়ে রবিউল ইসলাম ২৪ এপ্রিল অভিযোগ করেন সংশ্লিষ্ট মুঠোফোন অপারেটরের কাছে। ২৮ মে পর্যন্ত নিয়মিত যোগাযোগ রেখে গ্রাহক সেবাকেন্দ্রে গিয়ে বিষয়টি সুরাহা হয়নি। সবশেষে তিনি সিম নিবন্ধন বাতিল করার হুমকি দিলে অপারেটর সমস্যাটি সমাধান করে।

রবিউল ইসলাম আজ বুধবার বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) গণশুনানিতে টাকা কেটে নেওয়া ও নিজের ভোগান্তির এ চিত্র তুলে ধরেন। ২০১৬ সালের পর এ গণশুনানির আয়োজন করে বিটিআরসি। এতে গ্রাহকের অজান্তে টাকা কেটে নেওয়া, বাণিজ্যিক খুদে বার্তা ও কল করে বিরক্ত করা, নেটওয়ার্কের নিম্নমান, দ্রুতগতির ইন্টারনেট না থাকা, গ্রামে নিম্নমানের সেবা, কলরেট ও ইন্টারনেটের দাম নিয়ে নানা অভিযোগ করেন গ্রাহকেরা।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হকের উপস্থিতিতে কর্মকর্তারা এসব অভিযোগের জবাব দেন, বিভিন্ন বিষয়ে সুরাহার পদক্ষেপের কথা জানান এবং ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন। বিটিআরসি জানায়, গণশুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য ২৪ মে আবেদন আহ্বান করা হয়। ২০২ জন নিবন্ধন করেন। তাঁদের মোট প্রশ্ন ছিল ১ হাজার ৩১৯টি।

গণশুনানিতে উপস্থিত থেকে গ্রাহকেরা মোট ১৭টি প্রশ্ন করেন। এ ছাড়া আমন্ত্রিত অতিথিদের কাছ থেকে ৩০-৩৫টি প্রশ্ন আসে। বিটিআরসি জানায়, সব প্রশ্ন ও অভিযোগের সুরাহা করে ১৫-২০ দিনের মধ্যে ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

অভিযোগকারীদের একজন ছিলেন আতাউর রহমান। তিনি বলেন, তাঁর মা গ্রামে থাকেন। মায়ের ফোনটি ফিচার ফোন, স্মার্টফোন নয়। ফোনের ব্যালান্স থেকে ৪৮ টাকা কেটে নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে অপারেটর জানিয়েছে, ইন্টারনেটে গেম খেলার কারণে এ টাকা কাটা হয়েছে। আতাউরের প্রশ্ন, তাঁর মা কখনোই ইন্টারনেট ব্যবহার করেন না। গেম খেলারও প্রশ্ন ওঠে না। এভাবে অসচেতন মানুষের কাছ থেকে মোবাইল অপারেটররা টাকা কেটে নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

আতাউর রহমানের আরেকটি অভিযোগ হলো, নতুন সিমের সঙ্গে ভ্যালু অ্যাডেড সার্ভিস চালু করা থাকে। মোবাইল কোম্পানির অ্যাপ ব্যবহার করে সেটা চাইলেও বন্ধ করা যায় না। তিনি এর প্রতিকার চান।

একজন গ্রাহক অভিযোগ করেন, মোহাম্মদপুরে তাঁর বাসার চারতলার নিচে কোনো নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না। বাসা থেকে বেরিয়ে ধানমন্ডিতে যাওয়ার সময় প্রায়ই তাঁর কলড্রপ হয়।

মো. আবদুস সালাম নামে একজন গ্রাহক অভিযোগ করেন, অযাচিত কল ও খুদে বার্তার কারণে তিনি বিরক্ত। এর একটা প্রতিকার চান।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 53 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com