স্কুলছাত্রী ও শিক্ষিকাসহ ৩ জনকে ধর্ষণের অভিযোগ

Print

ফরিদপুরের নগরকান্দা, ময়মনসিংহের ধোবাউড়া, বগুড়ার ধুনট ও ভোলার লালমোহনে স্কুলছাত্রী, শিক্ষিকা, গৃহবধূ ও গৃহপরিচারিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় দেড় বছরের এক শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

এদিকে পাবনায় গৃহবধূকে গণধর্ষণের পর থানায় এক ধর্ষকের সঙ্গে তার বিয়ে দেওয়ার ঘটনায় মামলার এজাহারভুক্ত আরেক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তার নাম ওসমান আলী (৩৫)। গতকাল শুক্রবার সকালে পাবনা শহরের সিঙ্গা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। ওসমান আলী সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নের গাঁতিসাতমাইল গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে। এর আগে মামলার চার আসামি

রাসেল আহমেদ, শরিফুল ইসলাম ঘন্টু, সঞ্জু হোসেন ও জাকির হোসেন ড্রাইভারকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ নিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত পাঁচ আসামিকেই গ্রেপ্তার করা হলো।

ফরিদপুর : নগরকান্দায় একটি স্কুলের পরিচালকের বিরুদ্ধে ওই প্রতিষ্ঠানের এক শিক্ষিকাকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্তের নাম সামিউল ইসলাম (৩৬)। তিনি নগরকান্দা উপজেলা সদরে অবস্থিত ‘এস আলী মাল্টিমিডিয়া প্রিক্যাডেট স্কুল’-এর পরিচালক এবং উপজেলার কোদালিয়া শহীদনগর ইউনিয়নের ছাগলদী গ্রামের এসকেন্দার আলীর ছেলে। গত বৃহস্পতিবার রাতে শিক্ষিকা নিজে অভিযোগ দেওয়ার পর নগরকান্দা থানায় মামলা নথিভুক্ত হয়। ওই মামলায় সামিউলকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই শিক্ষিকাকে ফরিদপুর মেডিক্যালে পাঠানো হয়েছে।

লালমোহন : ভোলার লালমোহনে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গৃহপরিচারিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। মেয়েটি গত ৫ সেপ্টেম্বর পুত্রসন্তান প্রসব করে। এ ঘটনায় লালমোহন থানায় গত ৮ সেপ্টেম্বর ধর্ষণের মামলা করে মেয়েটি। অভিযুক্ত ব্যক্তি মো. রাসেল। লালমোহন থানার ওসি মীর খায়রুল কবীর জানান, আসামিদের গ্রেপ্তারে সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে।

পাবনা : পাবনা সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. আছাদুজ্জামান জানান, গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় এরই মধ্যে আদালতে আসামি রাসেল আহমেদ ও জাকির হোসেন ড্রাইভার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বাকিটা তদন্ত চলছে। প্রয়োজন হলে রিমান্ডে নেওয়া হবে। ২৯ আগস্ট দিবাগত রাত থেকে আসামিরা তিন সন্তানের জননী ওই নারীকে চার দিন আটকে রেখে ধর্ষণ করে। একসময় নির্যাতিতা পালিয়ে সদর থানায় আশ্রয় নেন এবং অভিযোগ করেন। কিন্তু তার অভিযোগ আমলে না নিয়ে পুলিশ ধর্ষক রাসেলের সঙ্গে তাকে বিয়ে দেন। এ ঘটনা সংবাদমাধ্যমে প্রচার হওয়ায় জেলা পুলিশের নির্দেশে ৯ সেপ্টেম্বর ওই নারী পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেন।

মাদারীপুর : রাজৈর উপজেলার রাজৈর ইউনিয়নের রোয়াবাড়ী গ্রামে গত ১০ সেপ্টেন্বর সকালে দেড় বছরের এক শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ওঠে তার চাচাতো মামা হৃদয় ভক্তের (২১) বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা থানায় মামলা করেন। গতকাল বিকাল ৩টার দিকে স্থানীয় জনতা হৃদয়কে আটক করে র‌্যাবের হাতে সোপর্দ করেন। পরে তাকে পুলিশে হস্তান্তর করা হয়। এদিকে ঘটনার দিন সকালেই শিশুটিকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বগুড়া : ধুনট উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নে প্রেমে সাড়া না পেয়ে তালাকপ্রাপ্ত এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সকাল ১০টার দিকে অভিযুক্ত তারেক রহমানকে তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সে উপজেলার আড়কাটিয়া গুচ্ছগ্রামের মোক্তার হোসেনের ছেলে।

মামলাসূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ওই নারী আড়কাটিয়া গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা। প্রায় দুই বছর আগে তার বিয়ে হয়েছিল। মাস চারেক আগে স্বামী তাকে তালাক দেন। এর পর তিনি বাবার বাড়ি থেকে টুপি তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

ময়মনসিংহ : ধোবাউড়ায় সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে সাত্তার নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। গত সোমবার ঘটনাটি ঘটে উপজেলার নলগড়া (কলসিন্দুর) গ্রামে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে ধোবাউড়া থানায় মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল শুক্রবার ভোরে পুলিশ সাত্তারকে গ্রেপার করে। সে নলগড়া গ্রামের রইছ উদ্দিনের ছেলে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 41 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com