স্বেচ্ছাসেবক লীগে বিতর্কমুক্ত নেতৃত্ব চায় আওয়ামী লীগ

Print

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১৬ নভেম্বর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। সাত বছর পর সম্মেলন হওয়ায় সম্মেলন ঘিরে নেতাকর্মীরা চাঙা হয়ে উঠেছেন। দলে শুদ্ধি অভিযান শুরু হওয়ায় ক্লিন ইমেজ প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ বেড়ে গেছে। এবার বিতর্কমুক্ত প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়ার চিন্তাভাবনা করছে আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ক্যাসিনোকাণ্ডে জড়িত ও দুর্নীতির সাথে সম্পৃক্ত আছে এমন নেতাদের কোনোভাবেই ছাড় দিতে নারাজ আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওইসব নেতা সংগঠনের কোনো পদে যেন বসতে না পারে সেজন্য চুলচেরা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতিকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে এবং সাধারণ সম্পাদককে সব কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সম্মেলন সামনে রেখে ইতোমধ্যে বিতর্কমুক্ত প্রার্থীদের ব্যাপারে আওয়ামী লীগ প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা এবং নিজস্ব সোর্স দিয়ে খোঁজখবর নিয়েছেন ও নিচ্ছেন। স্বচ্ছ, ক্লিন ইমেজ ও ত্যাগী নেতাদের অগ্রাধিকার দিয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি করতে চান আওয়ামী লীগ প্রধান।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ সূত্র জানায়, ২০১২ সালের ১১ জুলাই থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগে অ্যাডভোকেট মোল্লা আবু কাওছার সভাপতি এবং পঙ্কজ দেবনাথ সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এরপর থেকেই তৃণমূলের জেলা, উপজেলা, মহানগরসহ প্রায় প্রতিটি ইউনিটের কমিটি সক্রিয় রয়েছে। তবে দীর্ঘদিন কেন্দ্রীয় সম্মেলন না হওয়ায় স্বচ্ছ, ক্লিন ইমেজ ও ত্যাগী নেতারা উপরে উঠতে পারছেন না। অনেকেই দীর্ঘদিন একই পদে থাকায় ঝিমিয়ে পড়েছেন। তবে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হওয়ায় ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ছড়িয়ে পড়েছে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মধ্যে। কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে সম্পৃক্তদের তৎপরতাও বেড়ে গেছে। আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডি রাজনৈতিক কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ অফিস কিংবা বড় নেতাদের বাসায় নীতিনির্ধারক পর্যায়ের নেতাদের আনাগোনা বেড়েছে। নিষ্ক্রিয় নেতারাও তৎপর হয়ে উঠেছেন। সকাল-বিকেল কার্যালয় ও নেতাদের কাছে ধর্ণা দিয়ে নিজেকে ত্যাগী, স্বচ্ছ ও বিতর্কমুক্ত নেতা হিসেবে জাহির করার চেষ্টা করছেন। শুদ্ধি অভিযানের কারণে স্বচ্ছ ইমেজের প্রার্থীরা আশায় বুক বাঁধছেন। কেন্দ্রীয় সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আসতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন অন্তত ডজন খানেক নেতা। এর মধ্যে সভাপতি পদে আলোচনায় আছেন সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, মতিউর রহমান মতিসহ বেশ কয়েকজন। আর সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় আছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী মেসবাউল হোসেন সাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম বেপারী, খায়রুজ্জামান জুয়েলসহ অনেকেই।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 50 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com