১৬ বছর পর রহস্য ফাঁস শোয়েবের

Print

১৬ বছর আগের বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হারের ক্ষত এখনও শুকায়নি পাকিস্তানের সাবেক পেসার শোয়েব আখতারের। তৎকালীন পাক অধিনায়ক ওয়াকার ইউনুসের দুর্বল নেতৃত্বের জন্য সেবার হার মানতে হয়েছিল বলে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে জানান ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’।

ম্যাচের আগের দিন বাঁ পায়ের হাঁটুতে চার-পাঁচটা ইনজেকশন নিয়ে খেলতে নেমেছিলেন তিনি। খবরের ভেতরের এই খবরও ফাঁস করেছেন শোয়েব। খবর এনডিটিভির।

সেঞ্চুরিয়নে অনুষ্ঠিত পাক-ভারত ম্যাচে ২৭৩ রান করেও ‘টিম ইন্ডিয়া’কে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। অথচ পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণ সেবার দুরন্ত ছিল।

ইউটিউব চ্যানেলে শোয়েব বলেন, ‘২০০৩ বিশ্বকাপের পাকিস্তান-ভারত ম্যাচ ছিল আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সবচেয়ে হতাশাজনক ম্যাচ। আমরা ২৭৩ রান করেও ওইদিন ভারতকে থামাতে পারিনি।’

ম্যাচের আগেরদিন রাতে ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’ ব্যথা কমার চার-পাঁচটি ইনজেকশন নিয়েছিলেন বাঁ হাঁটুতে। শোয়েব বলেন, ‘ইনজেকশনের জন্য বাঁ পায়ের হাঁটুতে পানি জমে গিয়েছিল। আমার হাঁটুতে কোনো অনুভূতিই ছিল না।’

পাকিস্তানের ব্যাটিংয়ের শেষে ড্রেসিংরুমের কথাও জানিয়েছেন শোয়েব। তিনি বলেন, ‘আমাদের ইনিংসের শেষে দলের সতীর্থদের বলেছিলাম, আমরা ৩০-৪০ রান কম করেছি।

আমার কথা শুনে দলের বাকিরা চেঁচিয়ে উঠেছিল। সবাই বলেছিল, ২৭৩ রানও যদি জেতার জন্য যথেষ্ট না হয়, তা হলে কত রান দরকার। অনেকেই বলেছিল, আমরা ভারতকে আউট করে দিতে পারব। আমি জানতাম পিচ ব্যাটিংসহায়ক। দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাটসম্যানরা সুবিধা পাবে।’

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 32 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ
bdsaradin24.com