৫২টি থাকলেও দ্বিগুণ দামে কেনা হচ্ছে চাঁদ দেখার অ্যানালগ যন্ত্র

Print

চলতি বছর ঈদুল ফিতরের ‘চাঁদ দেখা না দেখা’ নিয়ে বিভ্রান্তি হওয়ায় চাঁদ দেখার অ্যানালগ যন্ত্র কেনার উদ্যোগ নিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। যদিও মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র (স্পারসো) ও আবহাওয়া অধিদফতরে এ ধরনের ৫২টি যন্ত্র আগে থেকেই রয়েছে। ওই দুটি প্রতিষ্ঠান চাঁদ দেখা কমিটির সদস্যও।

দুই প্রতিষ্ঠানের কাছে ৫২টি যন্ত্র থাকার পরও আরেকটি যন্ত্র কেনার উদ্যোগ নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ ছাড়া ইসলামিক ফাউন্ডেশন এই উদ্যোগ নিয়েছে।

জানা গেছে, আবহাওয়া অধিদফতর অপটিক্যাল থিওডোলাইট নামের চাঁদ দেখার একেকটি যন্ত্র কিনেছিল ২৫ লাখ টাকায়। এখন অ্যানালগ সিস্টেমে পরিচালিত একই ধরনের অপটিক্যাল থিওডোলাইট যন্ত্র কিনতে খরচ ধরা হয়েছে ৫০ লাখ টাকা। এরই মধ্যে এই যন্ত্র কিনতে দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, ৪ জুন ঈদুল ফিতরের চাঁদ দেখা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার পর ধর্ম মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে চাঁদ দেখার যন্ত্র থিওডোলাইট কেনার সিদ্ধান্ত হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশন এই যন্ত্র কেনার পরামর্শ দেয়। সেই অনুযায়ী টেন্ডার আহ্বান করা হয়।

চাঁদ দেখা যন্ত্র কেনার আহ্বায়ক ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব কাজী নুরুল ইসলাম বলেন, ‘টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। আশা করছি, এ মাসের মধ্যেই যন্ত্রটি কেনা হয়ে যাবে।’

কোন দেশ থেকে যন্ত্রটি কিনছেন এবং এটি অপটিক্যাল নাকি মাইক্রোওয়েভ, জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘যন্ত্রটি আমেরিকা থেকে কেনা হচ্ছে। এর দাম পড়বে প্রায় ৫০ লাখ টাকা। আর অপটিক্যাল নাকি মাইক্রোওয়েভ তা বলতে পারছি না। আবহাওয়া অধিদফতর যে পরামর্শ দিয়েছে তাই কেনা হচ্ছে।’

তবে এটি দিয়ে হালকা মেঘেও চাঁদ দেখা যাবে। আকাশে বেশি মেঘ থাকলে এই যন্ত্র দিয়ে চাঁদ দেখা সম্ভব হবে না বলে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়ে বলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাসচিব।

কোথায় চাঁদ দেখা যন্ত্রটি বসানো হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি যন্ত্রটি কোথায় বসানো হবে? তবে যেখানে পশ্চিম আকাশ ভালোভাবে দেখা যাবে সেখানেই বসানো হবে। সেই হিসেবে আপাতত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আগারগাঁও ভবনের ছাদে বসানো হতে পারে।’

অনুসন্ধানে জানা গেছে, ৫০ লাখ টাকা খরচ করে চাঁদ দেখার জন্য যে যন্ত্রটি কেনা হচ্ছে, সেটি মূলত একটি অপটিক্যাল থিওডোলাইট। যা দিয়ে আকাশে মেঘ থাকলে চাঁদ দেখা সম্ভব হবে না। এ ধরনের অপটিক্যাল থিওডোলাইট যন্ত্র আবহাওয়া অধিদফতরের হেড অফিসে ৮টি এবং ৪৩ জেলা আবহাওয়া অফিসে রয়েছে ৪৩টি যন্ত্র। একই ধরনের একটি যন্ত্র মহাকাশ গবেষণা কেন্ত্রের রয়েছে। এই সংস্থাটি আরও পাঁচটি টেলিস্কোপ বসানোর চিন্তা করছে।

একই যন্ত্র চাঁদ দেখা কমিটিতে থাকা দুই সদস্য প্রতিষ্ঠানের রয়েছে। এরপরও আলাদা করে কেনার দরকার কী জানতে চাইলে সচিব কাজী নুরুল ইসলাম বলেন, ‘তাদের থাকলেও আমাদের নেই, তাই এ ধরনের যন্ত্র কিনতে হচ্ছে। আগের যে যন্ত্র রয়েছে তার চেয়েও এটি উন্নত ও আধুনিকমানের। আপাতত একটা কেনা হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে অন্য জেলাগুলোতেও এই যন্ত্র বসানো হবে।’

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin24@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 30 বার)


Print
bdsaradin24.com