আগামী নির্বাচন হবে অংশ গ্রহন মূলক —-বাণিজ্যমন্ত্রী

Print

নিরব হোসেন ভোলা ॥ ভোলায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আগামী নির্বাচন হবে অংশ গ্রহন মূলক।এই সরকারই ক্ষমতায় থাকবে। বিএনপিরকে উদ্দেশ্য করে বলেন,তারা যদি চেষ্টা করে এই সরকারের অধিনে নির্বাচন করবে না এটা তাদের ব্যাপার। ২০১৪ সনে নির্বাচন করেনি তাতে কি লাভ হয়েছে। প্রধান মন্ত্রী চেষ্টা করেছিলেন আলোচনা করে এক সাথে নির্বাচন করার । কিন্তু খালেদা জিয়া তা প্রত্যাখান করে। এই বারও যদি নির্বাচন না করে তা হলে আমাদের কিছু করার নেই বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সংবিধান অনুযায়ী বাংলাদেশে নির্বাচন হবেই। বিএনপি যদি নির্বাচন না করে তা হলে আরো একটি ভূল করবে।মন্ত্রী শনিবার দুপুরে সদর উপজেলার বাংলাবাজার এলাকায় আজাহার ফাতেমা বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কাজ উদ্বোধন উপলক্ষে দোয়া মোনাজাত ও বানিজ্যমন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত স্বাধীনতা জাদুঘর পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রায় ৩ একর জমির উপর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি ৮তলা বিশিষ্ট হবে। বাণিজ্যমন্ত্রীর উদ্দ্যোগেই এই মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি নির্মান হচ্ছে।মন্ত্রী বলেন, ভোলায় ২২৫ ও ৫৫ মেঘাওয়াটের ২টি পাওয়ার প্লান্ট রয়েছে। এছাড়াও ভারতীয় একটি কোম্পানী সাপুরজি পালুনজি আরো ২২৫ মেঘাওয়াট, আশুগঞ্জ থেকে ১০০ মেঘোওয়াট ও স্যামসং এর সাথে জয়েন্ট ভেঞ্চারে ৪০০ মেঘোওয়াটের আরো একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যেগ নেয়া হয়েছে। এতে করে ভোলাসহ দেশের দক্ষিানাঞ্চলে বিদ্যুতের আর কোন সমস্যা থাকবেনা।তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন,গত ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালে জনসভায় প্রধান মন্ত্রী ভোলাকে মূল ভূখন্ডের সাথে যুক্ত করতে ভোলা-বরিশাল ব্রীজ নির্মানের ঘোষনা দিয়েছেন এবং তিনি নিজে একটি ম্যাপ দেখেছেন। তার কাছে ৩টি প্রস্তাব ছিলো কোন জায়গা দিয়ে ব্রীজ করলে ভাল হবে। তিনি নিজে তার অভিজ্ঞতার আলোকে কোন জায়গা দিয়ে ব্রীজ নির্মান করলে ভাল হবে তা ভেদুরিয়া থেকে লাহার হাট পর্যন্ত ব্রীজের স্থান নির্ধারন করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ভোলা একটি শিল্প নগরি হবে। এই শিল্পের উৎপাদিত পন্য এ ব্রীজটি হলে পদ্মা সেতু দিয়ে মাত্র ৫ ঘন্টায় ভোলা থেকে ঢাকায় পৌছানো যাবে। মন্ত্রী বলেন, সব মিলিয়ে ভোলার একটি উজ্জল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সচিব এম মোকাম্মেল হক, দৈনিক ভোরের কাগজ পত্রিকার সম্পাদক শ্যামল দত্ত, জেলা প্রশাসক মোহাং সেলিম উদ্দিন, পুলিশ সুপার মো: মোকতার হোসেন, পৌর মেয়র মো: মনিরুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: মোশারেফ হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি হামিদুল হক বাহালুল, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদারসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 179 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ