সেবায় ব্যাংকের ফি’র যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন

Print

রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাংকগুলো বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, উপবৃত্তি পরিশোধ ও ইউটিলিটি বিল আদায়সহ সরকারকে বিনা পয়সায় এতদিন যেসব সেবা দিয়ে আসছিল, সেসব সেবায় বর্তমানে নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি বা মাশুল দাবি করছে। ব্যাংকগুলোর বিদ্যমান মূলধন ঘাটতি মেটাতে তারা সরকারের কাছে এই দাবি তুলছে।

কিন্তু অর্থনীতিবিদরা বলছেন, ব্যাংকগুলোর এই দাবি যৌক্তিক নয়। কারণ সরকার ব্যাংকগুলোকে বিভিন্ন ভাবে সরাসরি আর্থিক সুবিধা দিয়ে আসছে। আবার সরকারি অর্থ আমানত রেখে অর্থ উপার্জনের পথও তৈরি করে দিচ্ছে। সেই হিসাবে জনগণের স্বার্থে রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাংকগুলো থেকে বিনা পয়সায় কিছু সুবিধা নিতেই পারে।

জানা গেছে, গত বছরের ডিসেম্বরে রাষ্ট্রমালিকানাধীন ৮ ব্যাংকের মূলধন ঘাটতি দাঁড়িয়েছে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা। এতে ব্যাংকগুলোর পাশাপাশি চিন্তায় পড়ছে অর্থমন্ত্রণালয়ও। এর সমাধানের পথ বের করতে গত বুধবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের আর্থিক বিভাগ রাষ্ট্রায়াত্ত সোনালী, অগ্রণী, জনতা, রূপালীসহ সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোর সাথে বৈঠক করেছে। বৈঠকে এসব ব্যাংকের এমডিরা বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা প্রদান ও ইউটিলিটি বিল নেওয়াসহ সরকারকে বিনা পয়সায় যেসব সেবা দিচ্ছে সেগুলোর উপর নতুন করে সেবা ফি পরিশোধ করার অনুরোধ জানিয়েছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 112 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ