রাদবি রেজা ওরফে ‘টেরট বাবা’ কে গ্রেফতার

Print

রেডিও’র একটি অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের শোনানো হতো ভৌতিক গল্প। সাধারণ মানুষের আগ্রহ থাকায় খুব কম সময়েই জনপ্রিয় হয়ে উঠে অনুষ্ঠানটি। পরবর্তী সময়ে অনুষ্ঠানটিতে মানুষের নানা ধরনের সমস্যা সমাধানের জন্য ‘টেরট কার্ড সেগমেন্ট’ নামে একটি সেগমেন্ট যুক্ত করা হয়।

অনুষ্ঠানের সেই অংশটির উপস্থাপনা করতেন কথিত প্যারানরমাল (ভৌতিক-আধাভৌতিক) গবেষক রাদবি রেজা ওরফে ‘টেরট বাবা’ (৩২)। যেসব শ্রোতা ওই সেগমেন্টে অংশ নিয়ে নিজেদের সমস্যা শেয়ার করতে কল করতেন; তাদের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বলে জ্বিন-ভূতের ভয় দেখাতেন রেজা। তারপর সহজ-সরল মানুষের কাছে সমস্যা সমাধানের কথা বলে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করে চড়ামূল্যে আতর, মুক্তা, আংটি বিক্রি করতেন।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্লা নজরুল ইসলাম এসব তথ্য জানান।

এরআগে গত ১২ ফেব্রুয়ারি যাত্রাবাড়ি থানায় করা একটি মামলায় বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে রেজাকে গ্রেফতার করে সিআইডির অর্গানাইজ ক্রাইম বিভাগ।

এসময় তার কাছ থেকে টেরট কার্ড, জিপিএস জ্যামার, ২২টি কথিত মুক্তা, ২৮টি ধুপ, ২টি কথিত ইস্তাম্বুলের আতর, পড়া পানির বোতল, ৩টি মোবাইল সেট, ২টি সিপিইউ ও লাইভের জন্য ব্যবহৃত ১টি ক্যামেরা জব্দ করা হয়।

ব্রিফিংয়ে মোল্লা নজরুল ইসলাম বলেন, রেজা ওরফে টেরট বাবা ২০১৬ সালের অক্টোবর মাস থেকে এবিসি রেডিওর ‘ডর’ অনুষ্ঠানে যুক্ত হন। প্রথম দিকে সেই অনুষ্ঠানে শুধু ভূতের গল্প বলা হতো। পরবর্তী সময়ে অনুষ্ঠানটিতে মানুষের নানা ধরনের সমস্যা সমাধানের জন্য ‘টেরট কার্ড সেগমেন্ট’ নামে একটি বিষয় যুক্ত করা হয়। সেই অংশে রেজা মানুষের অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ বলে জ্বিন-ভূতের ভয় দেখাতেন। এর মাধ্যমে সহজ-সরল মানুষের কাছে আতর, মুক্তা, আংটি চড়া দামে বিক্রি করতেন তিনি।

তিনি বলেন, চড়া দামে পণ্য কিনে স্বাভাবিকভাবেই কারো কোনো উপকার হয়নি। প্রতারণার শিকার বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী রেজার বিরুদ্ধে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় মামলা করেন। সেসব মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সিআইডির এই পুলিশ সুপার বলেন, রেডিওতে কাজ করার সুবাদে রেজার প্রতি সাধারণ মানুষের মধ্যে অনেক রকমের ধারণা জন্ম নিত। তারা তাকে অতিমানবীয় কিছু মনে করত। অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যৎ বলে দেওয়াকে সত্য ভেবে সাধারণ মানুষরা তার ভক্ত হয়ে যেত, এছাড়াও তার ফেসবুকে লাখ খানেক ফ্যান রয়েছে।

রাদবি রেজার ফেসবুক লাইভে বিভিন্ন মানুষ তাদের ভবিষ্যৎ জানতে চাইতো ও নিজেদের ব্যক্তিগত সমস্যার সমাধান জানতে কমেন্টস করত। এরপরে সমস্যার ধরণ বুঝে আলাদাভাবে যোগাযোগের মাধ্যমে রাদবি তাদেরকে তার বাসায় নিয়ে সমস্যা সমাধানের নামে অর্থ হাতিয়ে নিত। এছাড়া একটি ওয়েব সাইট ও টেরট কার্ড কন্সালটেন্সি ফার্ম খুলে বহু অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে এই কথিত প্যারানরমাল গবেষকের বিরুদ্ধে।

সিআইডি জানায়, রাদবির টেরট কার্ড কন্সালটেন্সি ফার্মে তার সঙ্গে দুই ঘণ্টার জন্য দেখা করতে হলে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে অগ্রিম ২০ হাজার পাঁচ’শ টাকা দিতে হতো। ডর টেরট প্রোগ্রামে টেরট কার্ডের মাধ্যমে যে কাউকে লটারি জিতিয়ে দিতে পারে, ক্যান্সার ও প্যারালাইসিসের রোগীকে ভালো করে দিতে পারেন বলেও দাবি করে টাকা হাতিয়ে নিত।

গত বছরের ৬ এপ্রিল রাদবি মুক্তাগুলো স্বপ্নে পেয়েছেন বলেও রেডিও’র ওই অনুষ্ঠানে প্রচারিত হয়। এসবের জন্য রেজাকে ওই রেডিও’র সাবেক আরজে কিবরিয়া সহায়তা করত। তাদের দুজনকেই চাকরিচ্যুত করেছে এবিসি রেডিও কর্তৃপক্ষ। কিবরিয়ার বিরুদ্ধে প্রতারণায় জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মোল্যা নজরুল ইসলাম বলেন, এখন পর্যন্ত সাত আটজন প্রতারিত হয়েছে এমন ভিকটিম আমরা পেয়েছি। এরআগে এই রাদবি ২০১২ সালের ১৪ জানুয়ারি রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানা পুলিশের কাছে ২০টি চোরাই মোটর সাইকেলসহ গ্রেফতার হয়েছিল।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 211 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ