বিয়ে করে বিপাকে যুবক

Print

সাত বছর ধরে প্রেম। অতঃপর বিয়ে করে বিপাকে পড়েছে এক যুবক। মেয়ের প্রভাবশালী পিতার মিথ্যা মামলার শিকার হয়ে ওই যুবক ও তার আত্মীয় স্বজন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায়।

জানা গেছে, উপজেলার ঘাঘর বাজারের ব্যবসায়ী শংকর সাহার ভাগ্নে তারক সাহার সাথে একই বাজারের ব্যবসায়ী স্বপন সাহার মেয়ে লোপা সাহার দীর্ঘ সাত বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। এরই সূত্র ধরে গত ১২ জুলাই তারক ও লোপা গোপালগঞ্জ খাটরা সার্বজনীন কালী মন্দিরে গিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এরপর একই মাসের ১৫ তারিখে দু’জনে মিলে গোপালগঞ্জ বিজ্ঞ নোটারী পাবলিকের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে এফিডেভিট করে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর লোপার পিতা স্বপন সাহা গত ২০ আগস্ট লোপাকে দিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে এফিডেভিটের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটান। এই ঘটনার ৯ দিন পর গত ২৯ আগস্ট লোপার পিতা স্বপন সাহা গোপালগঞ্জ বিজ্ঞ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে তারক সাহা ও তার তিন মামা এবং খালাতো ভাই পরিতোষ সাহাকে আসামী করে একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে কোটালীপাড়া থানাকে এফআইআর হিসেবে গন্য করার নির্দেশ দেন। কোটালীপাড়া থানা বৃহস্পতিবার রাতে মামলাটি এফআইআর করেন। এই মামলার পরে তারক এবং তার আত্মীয় স্বজন এলাকা ছেলে পালিয়ে যান।

তারক সাহা বলেন, আমার শ্বশুর স্বপন সাহা জোর করে আমার স্ত্রীকে আটকে রেখেছেন। এছাড়া তিনি আমাকে জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছেন। আমাকে ও আমার আত্মীয় স্বজনদের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন।

শংকর সাহা বলেন, আমার ভাগ্নের বাড়ি মুকসুদপুর উপজেলায়। সে আমার দোকানে কাজ করে। তার প্রেম ও বিয়ে সম্পর্কে আমরা কিছুই জানি না। স্বপন সাহা মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদেরকে হয়রানি করছে।

এ ব্যাপারে স্বপন সাহার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 158 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ