থামানো যাচ্ছে না ‘জীবাণু অস্ত্রের’ ব্যবসা

Print

পানির অপর নাম জীবন। সেই পানিই দূষিত অবস্থায় পানের চূড়ান্ত পরিণতি হতে পারে মরণ। অথচ দিনের পর দিন রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মানুষ না জেনে কিংবা অসচেতনভাবে পান করছে অনিরাপদ পানি। প্লাস্টিকের জারে ভরে দূষিত এই পানির বড় অংশের জোগান দেয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। বিষয়টি জনস্বাস্থ্যের জন্য ভয়ঙ্কর বিবেচনায় বিভিন্ন সময়ে কারখানাগুলোতে অভিযান চালিয়েছে মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। তাদের অভিযানে ধ্বংস হয়েছে শত-সহস্র জার। এরপরও থামছে না জীবাণু অস্ত্রের মতো ভয়ঙ্কর এই জারের ব্যবসা।

বিগত দিনে জারের পানি বাজারজাতকারী অনেক প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই)। সেসব অভিযানের সময় সরাসরি কোনো প্রকার পরিশোধন না করে কীভাবে জারে পানি ভরে তা বাজারজাত করা হয়, তা উঠে আসে।

বিভিন্ন অভিযানে অংশ নেওয়া কর্মকর্তারা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নোংরা পরিবেশে ও কোনো পরিশোধন ব্যবস্থা ছাড়াই পানির জারগুলো সরাসরি চলে যায় বিভিন্ন হোটেল, রেস্তোরাঁ ও চায়ের দোকানে। এমনকি ওয়াসার পানি নোংরা ড্রেন থেকে তুলেও ভরা হয় এসব জারে। আর বিশুদ্ধ ভেবে এই পানি পান করে নানা রকমের রোগে প্রতিনিয়ত আক্রান্ত হচ্ছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ।

এ অপরাধে বহু পানি বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানের মালিক-কর্মচারীদের জেল-জরিমানা করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এমনকি অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে সিলগালাও করা হয়েছে। এরপরও একটি অসাধু চক্র লাভের আশায় এমন অনিরাপদ পানি বাজারজাত করে আসছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের পরও কোনোভাবেই থামানো যাচ্ছে না এই ‘জীবাণু অস্ত্রের’ ব্যবসা।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 121 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ