কীভাবে বুঝবেন হ্যাক হয়েছে স্মার্টফোন

Print

স্মার্টফোন এখন জীবনযাপনের আবশ্যিক অনুষঙ্গ। জরুরি যোগাযোগ থেকে শুরু করে আর্থিক লেনদেন সবকিছুই এখন সেরে ফেলা যাচ্ছে স্মার্টফোনের মাধ্যমেই।

ফলে প্রয়োজনীয় ফোন নম্বরসহ, ছবি, ভিডিও এবং নানা ধরনের তথ্যে ঠাসা থাকে আপনার ডিভাইসে। যার কারণে হ্যাকারদের এখন অন্যতম লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে আপনার স্মার্টফোন।

জরুরি পাসওয়ার্ড, ব্যক্তিগত তথ্য, ক্রেডিট কার্ড ও ব্যাংকের তথ্যসহ অন্যান্য ব্যবসায়িক ও আর্থিক লেনদেন সম্পর্কিত তথ্য চুরি করতে আপনার স্মার্টফোন হ্যাক করে বা আড়ি পাতে হ্যাকাররা।

এখন কী করে বুঝবেন আপনার ডিভাইস হ্যাকারদের লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হয়েছে। এ নিয়ে রিডার ডাইজেস্ট একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

১. স্মার্টফোনের ব্যাটারি দুর্বল হয়ে পড়বে। এতে চার্জ শেষ হয়ে যাবে দ্রুত। কারণ স্পাইওয়্যারগুলো স্মার্টফোনের চার্জ খেয়ে ফেলে।

২. আপনার ডিভাইস গরম হয়ে উঠবে। দেখা গেল, খুব বেশি ব্যবহার না করলেও বা ইন্টারনেটে সময় না কাটালেও আপনার ফোন দ্রুত গরম হয়ে যাচ্ছে।

৩. অযাচিত ম্যাসেজ আসা শুরু করেছে আপনার ফোনে। এতে আপনাকে হুমকিও দেওয়া হয়, অর্থ না দিলে ব্যক্তিগত ছবি বা ভিডিও প্রকাশ করে দেওয়া হবে।

৪. যেখানে সেখানে ইলেকট্রিক পোর্টে আপনি মোবাইল চার্জ দিলে। এতে অনেক সময় গোপন ডিভাইস সংযুক্ত করা থাকে। যেখান থেকে আপনার গুরুত্বপূর্ণ চুরি হয়ে যেতে পারে।

৫. আপনার অজান্তেই স্মার্টফোনে কোনো অ্যাপ ইনস্টল হয়ে গেলে। হ্যাকাররা তথ্য চুরির জন্য এসব অ্যাপ স্মার্টফোনে ঢুকিয়ে দেয়।

৬. আপনি জানেনই না, অথচ আপনার ফোন হুট করে লাইভ স্ট্রিমিংয়ে চলে যাচ্ছে। তার মানে হ্যাকাররা ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনার ফোন নিয়ন্ত্রণ করছে এবং সেটিকে গুপ্তচরবৃত্তির জন্য ব্যবহার করছে।

৭. স্মার্টফোনে নানা কার্যক্রমে ধীরগতি চলে আসা। যেমন, অনেক দেরিতে ম্যাসেজ সেন্ড হওয়া এবং রিসিভ হওয়া। ফোন কল আসতে দেরি করা এবং কল রিসিভ হতেও সময় নেওয়া।

৮. ইন্টারনেটের অতিরিক্ত ডেটা খরচ হয়ে যাওয়া। অথচ আপনি ইন্টারনেট ব্যবহারই করেননি। তাহলে বুঝবেন, আপনার অজান্তেই কেউ স্মার্টফোন ব্যবহার করছে ফলে অতিরিক্ত ডেটা খরচ হচ্ছে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 91 বার)


Print