আমাদের দেখে অন্যান্য মন্ত্রণালয় এখন শিখছে

Print

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, যে কৃষক কৃষি কার্ড বিক্রি করবেন তাকে কালো তালিকাভুক্ত (ব্ল্যাক লিস্ট) করা হবে। আমি যতদিন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকবো ততদিন পর্যন্ত তাকে কালো তালিকায় রাখা হবে। আমরা মাঠপর্যায়ে শুদ্ধাচার মিটিং করেছি। আমি চ্যালেঞ্জ করছি অন্যান্য মন্ত্রণালয়ে এমন করা হয় না। আমাদের দেখে অন্যান্য মন্ত্রণালয় এখন শিখছে।

শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে জেলা প্রশাসনের আয়োজেন নওগাঁ সদর উপজেলা খাদ্য গুদামে ডিজিটাল খাদ্যশস্য ব্যবস্থাপনার আওতায় ‘কৃষকের অ্যাপ’ এর মাধমে আমন মৌসুমে ধান ও চাল সংগ্রহের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, মানুষ মনে করে খাদ্য বিভাগ দুর্নীতিগ্রস্ত। আমি খাদ্য মন্ত্রণালয়কে আদর্শে পরিণত করতে চাই। অ্যাপের মাধ্যমে কৃষক সরাসরি খাদ্য গুদামে ধান দিবে এবং তারা লাভবান হবে। তারা কৃষি কার্ড বিক্রি করায় লটারিতে নাম ওঠে এবং তাদের অ্যাকাউন্টে টাকা জমা হয়। কিন্তু তারা টাকা পায়না। এজন্য কৃষকের অ্যাপস চালু করা হয়েছে। কিছুটা হলেও এখন থেকে তারা লাভবান হবে। অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ করতে আগামীতে গোটা দেশকে অ্যাপসের আওতায় নিয়ে আসা হবে। ইতোমধ্যে অ্যাপসের মাধ্যমে দেশের ১৬টি উপজেলায় পাইলট স্ক্রিমের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।

তিনি বলেন, অনেক কৃষক ধানের আবাদ না করেও তালিকায় নাম উঠিয়েছে। এর দায় খাদ্য মন্ত্রণালয়ের না। কারণ তালিকা দেয়ার দায়িত্ব কৃষি অফিসের। আমরা অনিয়ম বরদাস্ত করবো না।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 48 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ