দুই মুখোশধারীর প্রবেশ, কুপিয়ে খুন, বস্তাভরা টাকা লুট

Print

রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় একটি বাসায় ঢুকে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা করে বস্তা ভরা টাকা নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার ভোরের এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির কর্মচারী সাইফুলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

নিহত ব্যবসায়ীর নাম শাহ মোহাম্মদ তোবারক (৭২)। তিনি মহাখালীর একটি মার্কেটের মালিক। তাঁর বাড়ি কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জের চর পাড়ে। তিনি তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানাধীন শান্তিনিকেতনের ১৭৮ নম্বর বাড়ির চতুর্থ তলার পুরো ফ্লোর কিনে নিয়েছেন। এই ফ্লোরের একটি ফ্ল্যাটে তিনি একা থাকতেন।

তোবারক চট্টগ্রামের শফি মাইজভাণ্ডারির অনুসারী ছিলেন বলে জানা গেছে।

পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, তোবারকের ফ্ল্যাটের আলমারি ভাঙা পাওয়া গেছে। সেখান থেকে টাকা লুট হয়েছে বলে জানা গেছে। তোবারকের বাসায় মাইজভাণ্ডারির ভক্তরা আসত। ধারণা করা হচ্ছে, মতাদর্শগত বিরোধে বা টাকা লুটের জন্য এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে।

এক প্রশ্নের জবাবে এই কর্মকর্তা জানান, ‘বস্তা ভরা টাকা নিয়ে গেছে, এমন তথ্য আমরা পাইনি। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

গত রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত হত্যা মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছিল। ওই এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) মইনুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে জানান, মামলা প্রক্রিয়াধীন।

পুলিশ জানায়, শান্তিনিকেতনের ফ্ল্যাটটিতে মোহাম্মদ তোবারকের সঙ্গে থাকতেন সাইফুল নামের এক কর্মচারী বা গৃহকর্মী। যুবক সাইফুল তাঁর দেখাশোনা করতেন। গতকাল ভোরে ফ্ল্যাটের দরজার কল বেলের শব্দ শুনে সাইফুল দরজা খুলে দেন। সঙ্গে সঙ্গে দুই মুখোশধারী ব্যক্তি ফ্ল্যাটে ঢুকে পড়ে।

নিহতের এক আত্মীয় জানান, তাঁরা জানতে পেরেছেন দুর্বৃত্তরা সাইফুলকে বেঁধে রেখে তোবারককে কুপিয়ে জখম করে ফ্ল্যাটে বস্তার ভেতর থাকা টাকাসহ মালপত্র লুটে নিয়ে যায়। দুর্বৃত্তরা চলে যাওয়ার পর সাইফুল নিজেকে বাঁধনমুক্ত করে পুলিশকে জানান। পরে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তোবারককে উদ্ধার করে মহাখালীর মেট্রোপলিটন হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তাঁকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরে তোবারকের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 68 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ