নয়া ইতিহাস

Print

এসএ গেমসের সপ্তম দিনে দেশের বাইরে পাওয়া সেরা সাফল্যকে ছুঁয়েছিল বাংলাদেশ। অষ্টম দিন সকালেই আরচারি রিকার্ভ দলগত ইভেন্টে সোনা জিতে অ্যাথলেটরা গড়েন সাফল্যের নতুন ইতিহাস। বিকালে সেটিকে ছাড়িয়ে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে গেল আরচারি। তার সঙ্গে নারী ক্রিকেটের সাফল্য মিলে বাংলাদেশের স্বর্ণ সংখ্যা গিয়ে ঠেকেছে ১৪তে। গতকাল একদিনেই রেকর্ড সাতটি স্বর্ণ জেতে বাংলাদেশ। দেশের বাইরে আগের সেরা সাফল্য ছিল ১৯৯৫ সালে, মাদ্রাজের এসএ গেমসে। সেবার ৭টি সোনার পদক পেয়েছিল বাংলাদেশ। দেশের মাটিতে গেমসে অবশ্য এর চেয়েও বেশি সাফল্য আছে।

১৯৮৫ সালে প্রথমবারের মতো এসএ গেমসের আয়োজন করে বাংলাদেশ জিতেছিল ৯টি সোনা। ১৯৯৩ সালে দ্বিতীয় দফার আয়োজনে অর্জন ১১টি। আগের দুই আসর ছাপিয়ে ২০১০ সালে ১৮টি সোনার পদক জিতেছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। আরচারিকে নয়া ইতিহাসের হাতছানি দিচ্ছে। এক আসরে এক ডিসিপ্লিনে সর্বাধিক ছয়টি স্বর্ণ এসেছে সাঁতারে। ১৯৮৫ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত ওই আসরে ছয়টি স্বর্ণ জয়ের পাঁচটিতে অবদান ছিল মোশারফ হোসেনের। গতকাল পোখরায় একদিনে ছয়টি স্বর্ণ জিতে সাঁতারকে ছুয়েছে আরচারি। মোশারফকে ছাড়িয়ে যেতে না পারলেও আজ রোমান সানারা একবার সোনালী হাসি হাসলেই এক আসরে সাত স্বর্ণ জিতে নতুন রেকর্ড গড়বে আরচারি।

কাঠমান্ডুতে আসরের দ্বিতীয় দিনে ছেলেদের তায়কোয়ান্দোতে ২৯ (প্লাস) বয়স ক্যাটাগরিতে ৮ দশমিক ২৮ ও ৭ দশমিক ৯৬ স্কোর গড়ে সোনা জিতেন দিপু চাকমা। বাংলাদেশও পায় প্রথম সোনার পদকের দেখা। পরের দিন তিনটি সোনা আসে কারাতে ইভেন্ট থেকে। পুরুষ একক কুমিতে অনূর্ধ্ব-৬০ কেজিতে আল আমিন, কুমিতে মেয়েদের অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজিতে মারজান আক্তার প্রিয়া এবং কুমিতে অনূর্ধ্ব-৬১ কেজিতে হুমায়রা আক্তার অন্তরা সোনা জিতেন। বাংলাদেশ ছুঁয়ে ফেলে গত আসরের সাফল্যকে। এই চারটি সোনা জিতে যেন থমকে গিয়েছিল বাংলাদেশ। এই চারটি সোনার পদকই এসেছিল কাঠমান্ডু থেকে। তিনদিন বিরতির পর পোখারা থেকে আসে সোনালী সুসংবাদ। ভারোত্তলনে ৭৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে মাবিয়া আক্তার সিমান্ত জিতেন সোনার পদক। এ ইভেন্টে শ্রীলঙ্কার সি বি প্রিয়ন্তিকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় বারের মতো এসএ গেমসে স্বর্ণ জিতেন মাবিয়া। ব্যক্তিগত ইভেন্টে বাংলাদেশের কোনো নারী ক্রীড়াবিদের টানা দুই আসরে স্বর্ণ এটিই প্রথম। ১৯৯১ সালে কলম্বো সাফ গেমসে প্রথম নারী ক্রীড়াবিদ হিসেবে স্বর্ণ জয় করেন শুটার কাজী শাহানা পারভীন। মেয়েদের ব্যক্তিগত স্ট্যান্ডার্ড রাইফেল ইভেন্টে স্বর্ণ জিতেন তিনি। পরের আসরেও স্বর্ণ জয় করেছিলেন কাজী শাহানা পারভীন। তবে সেটি দলগত ইভেন্টে। এ ছাড়া সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শীলা ২০১৬ এসএ গেমসে এক আসরেই দুই স্বর্ণ জয়ের ইতিহাস গড়েছিলেন। দুটিই ছিল ব্যক্তিগত ইভেন্ট থেকে। ব্যক্তিগত কারনে এবার অনুপস্থিত শিলা।

এই সুযোগ কাজে লাগিয়েই পর পর দুই দুই আসরে সোনা জিতে ইতিহাস গড়েন এই ভারোত্তোলক। পোখারায় গত শনিবার মেয়েদের ৭৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে স্ন্যাচ ও ক্লিন অ্যান্ড জার্ক মিলিয়ে ১৮৫ কেজি তুলে মাবিয়া আক্তার সিমান্ত সোনা জিতলে গত আসরের সাফল্যকে ছাপিয়ে যায় বাংলাদেশ। একই দিন ভারোত্তোলনে ছেলেদের ৯৬ কেজি ওজন শ্রেণিতে স্ন্যাচ ও ক্লিন অ্যান্ড জার্ক মিলিয়ে ২৬২ কেজি তুলে জিয়ারুল ইসলাম এবং ফেন্সিংয়ে মেয়েদের সেইবার এককে ফাতেমা মুজিব সেরা হলে মাদ্রাজের সাফল্যকে স্পর্শ করে বাংলাদেশ। এরপর কেবল নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার পালা। পোখরার আরচারি স্টেডিয়ামে গতকাল রোমান সানা তামিমুল ইসলাম ও হাকিম আহমেদ রুবেলে সোনালি হাসিতে দিন শুরু করে বাংলাদেশ। দুপুর নাগাদ আরচারদর সেই হাসি আরও চওড়া হয়েছে। পুরুষদের দলগত রিকার্ভে রোমান সানা, হাকিম আহমেদ রুবেল ও তামিল ইসলাম ৫-৩ সেটে শ্রীলঙ্কান আরচাদের হারানো সাহস বেড়ে যায় অন্যদের। পরের ইভেন্টেগুলোতে বাংলাদেশের আরচারদের সঙ্গে কোনো রকম প্রতিদ্বন্দ্বিতাই গড়তে পারেননি অন্যরা। মেয়েদের দলগত রিকার্ভে ইতি খাতুন, মেহনাজ আক্তার মনিরা ও বিউটি রায়ের দল লঙ্কানদের ৬-০ সেটে উড়িয়ে দিয়ে সোনা জেতেন। মিশ্র রিকার্ভে দলটিতে ছিলেন রোমান সানা ও ইতি খাতুন। তারা হারান ভুটানকে ৬-২ সেটে। কম্পাউন্ড ইভেন্টে ছেলেদের দল জিতেছে ভুটানের বিপক্ষে। আশিকুজ্জামান, সোহেল রানা ও অসিম কুমার দাসের দল জিতেছে ২২৬-২১৩ পয়েন্টের ব্যবধানে। একই ইভেন্টে মেয়েরা জিতেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 73 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ