বিআরটিএ কার্যালয়ে দালালরাই সব

Print

নতুন সড়ক আইনের কারণে গাড়ির কাগজপত্র হালনাগাদ এবং লাইসেন্স তৈরির জন্য নারায়ণগঞ্জ বিআরটিএ কার্যালয়ে ভিড় বেড়েছে। ভিড়ের সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে ভোগান্তিও। অভিযোগ উঠেছে, দালাল না ধরে এখানে কোনো কাজ সহজভাবে করতে পারছেন না পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা।

গাড়ির রেজিস্ট্রেশন ও ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে আসা সেবাগ্রহীতাদের কাছ থেকে দালালদের মাধ্যমে সংশ্নিষ্টরা বাড়তি অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। দালালদের দৌরাত্ম্য এই অফিস ছাড়িয়ে সংশ্নিষ্ট ব্যাংক পর্যন্ত গড়িয়েছে। এনআরবিসি নারায়ণগঞ্জ কার্যালয়ে লাইসেন্সের টাকা জমা দিতে গিয়েও ভোগান্তির সম্মুখীন হচ্ছেন সেবাপ্রার্থীরা।

টোকেনের নামে শুধু পরিচিতদেরই টোকেন দেওয়া হয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে থাকলেও টোকেন দেওয়া হয় না। তবে ব্যাংক কর্মকর্তারা বিষয়টি স্বীকার করতে নারাজ। তারা বলছেন, এসব অভিযোগের জন্য নাকি ব্যাংকে টাকা জমা নেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। ফের সেবাটি চালু করা হয়েছে।

বিআরটিএর কর্মকর্তারা জানান, কাজের চাপ বেড়ে যাওয়া ও জনবলের স্বল্পতায় সেবা দেওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে। সেবাগ্রহীতাদের অভিযোগ পেয়ে তা বন্ধে পদক্ষেপ নিয়েছেন বলে জানান জেলা প্রশাসক ও রিজিওনাল ট্রান্সপোর্ট কমিটির সভাপতি জসিম উদ্দিন।

গত ১ নভেম্বর থেকে নতুন সড়ক পরিবহন আইনে শাস্তি ও জরিমানার পরিমাণ বাড়ানোর কারণে টনক নড়েছে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের। তাই তারা কাগজপত্র ঠিক করতে ভিড় করছেন বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির (বিআরটিএ) নারায়ণগঞ্জ সার্কেল অফিসে। বেড়েছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের চাপ।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 38 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ