শীত মৌসুমে ভাপা পিঠা বিক্রির ধুম

Print

বাকী বিল্লাহঃ (পাবনা)জেলা প্রতিনিধিঃ  শীত মৌসুম মানেই পিঠার উৎসব। কমবেশি সবার কাছেই লোভনীয় শীতকালীন পিঠা।শীত এলেই যেন শুরু হয়ে যায় ঘরে-বাইরে সবখানে পিঠা বানানোর ধুম। আমাদের দেশ নানা রকম পিঠার দেশ।এদেশে নানা রকম পিঠার বৈচিত্র্য লক্ষ্য করা যায় হরহামেশাই। শীত মৌসুমে অন্যসব পিঠার চেয়ে জনপ্রিয় পিঠার নাম হলো ’ভাপা পিঠা’। চাউলের গুঁড়ো আর পাঁটালি বা খেজুর গুড় দিয়ে সুস্বাদু এই পিঠা তৈরি করা হয়। শীতের সকালে ভাপা পিঠার সাথে অন্য কোনো পিঠার তুলনা চলেনা বললেই চলে। পাবনার বেড়া-সাঁথিয়ার দুই উপজেলায় শীতের শুরুতেই মৌসুমি পিঠা ব্যবসায়ীরা তৈরি ও বিক্রি করতে ব্যস্ত সময় পার করেছেন। বেড়া ও সাঁথিয়া  উপজেলার সবখানেই পিঠা ব্যবসায়ীদের চোখে পড়বার মতো।বেড়া-সাঁথিয়ার প্রানকেন্দ্র সি,এন্ড,বি বাসস্ট্যান্ডে এবং তার আশ-পাশের বিভিন্ন অলিতে গলিতে  প্রতিদিন কাঁক ডাকা ভোর থেকেই পিঠা তৈরির কাজ শুরু হয়। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, দুই উপজেলায় প্রতিদিন শতাধিক ব্যবসায়ীকে পিঠা বিক্রি করতে দেখা যায়। সূর্য্যদয়ের আগ থেকে শুরু করে সকাল ৯ টা থেকে ১০টা পর্যন্ত এবং বিকেল ৪টা থেকে রাত ৯ টা বা ১০ টা পর্যন্ত পিঠা তৈরি করতে দেখা যায়। সি,এন্ড,বি বাসস্ট্যান্ডের পিঠা বিক্রেতা রাজু আহমেদ  জানান, প্রতিদিন তার ১৫ থেকে ২০ কেজি চাউলের গুড়ার পিঠা বিক্রি হয়।তার সাথে প্রয়োজন মতো পাঁটালি গুড়। দুই ধরনের চাল দিয়ে পিঠা তৈরি হয় সাদা এবং লাল। তবে গুড় মেশানো পিঠার চাহিদাই বেশি। প্রতিটি পিঠার দাম ১০ টাকা। পুরো শীত মৌসুমেই চলবে এই পিঠা বিক্রির উৎসব।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 152 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ