কৃত্রিম শ্বাস প্রশ্বাসের যন্ত্র নেই ৬৩ জেলায়

Print

নভেল করোনাভাইরাসে সংক্রমিত সংকটাপন্নরোগীর চিকিৎসায় কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাস যন্ত্র বাভেন্টিলেটর ব্যবহার করতে হয়। কিন্তু করোনারচিকিৎসায় এ সুবিধা রয়েছে শুধু রাজধানীতেই। বাকি৬৩ জেলায় ভেন্টিলেশন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশেকরোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল মিলিয়ে মোট ৪ হাজার৫১৫টি আইসোলেশন বেড প্রস্তুত করা হয়েছে। এরমধ্যে শুধু ঢাকাতেই প্রস্তুত করা হয়েছে ১ হাজার৫০টি। ঢাকার মোট পাঁচটি হাসপাতালে এ ইউনিটগড়ে তোলা হয়েছে। এ পাঁচটি হাসপাতালে মোট২৯টি ভেন্টিলেশন সুবিধা আছে। করোনা রোগীরচিকিৎসায় এখন পর্যন্ত ঢাকার বাইরে কোনোআইসোলেশন ইউনিটে কোনো ধরনের ভেন্টিলেশনসুবিধা দেয়া হয়নি।

বিশ্বব্যাপী কভিড-১৯ বা নভেল করোনাভাইরাসেমৃতের সংখ্যা দীর্ঘ হচ্ছে। এরই মধ্যে বিশ্বের ১৯৭টিদেশে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেওকরোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ হয়ে উঠছে।করোনায় আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছেপাঁচজন। ভাইরাসটি মোকাবেলায় রাজধানীসহ সারাদেশে ব্যাপক প্রস্তুতির কথা বলা হলেও আদতে তাকতটুকু রয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশেষজ্ঞরা।

তারা বলছেন, যেভাবে করোনা রোগী ঢাকাসহদেশের বিভিন্ন জেলায় শনাক্ত হচ্ছে, তাতে এধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলায় ভেন্টিলেটরেরসংখ্যা খুবই উদ্বেগের। যদি অতিদ্রুত করোনারোগীদের পরিস্থিতি খারাপ হয়ে ওঠে, সেক্ষেত্রেপরিস্থিতি সামাল দেয়া কঠিন হয়ে পড়বে।

তবে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণাপ্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) বলছে, পরিস্থিতিবিবেচনায় আরো ১০০টি ভেন্টিলেটর প্রস্তুত করাহচ্ছে। তবে এ ভেন্টিলেটরগুলো ঢাকার বাইরেব্যবহার করা হবে কিনা, তা এখন নিশ্চিত নয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মান অনুযায়ী, একটি দেশের হাসপাতালে রোগীর জন্য যতগুলোশয্যা রয়েছে, তার ১০ শতাংশ আইসিইউ থাকারকথা। তবে এটি সম্ভব না হলে ন্যূনতম ৪ শতাংশথাকতে হবে। সে হিসেবে বাংলাদেশের সরকারিহাসপাতালগুলোয় সব মিলিয়ে রোগীর শয্যা রয়েছে৩১ হাজার ২২০টি। হিসাব অনুযায়ী এসবহাসপাতালে আইসিইউ ও ভেন্টিলেটর থাকার কথাসাড়ে তিন হাজারেরও বেশি। ন্যূনতম ধরলেও এরসংখ্যা হওয়ার কথা ছিল ১২শর মতো। তবে এসবহাসপাতালে বর্তমানে আইসিইউ রয়েছে মাত্র২২১টি, যার সবগুলোতে ভেন্টিলেশন সুবিধা নেই।

বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, বাংলাদেশে প্রায় ১কোটি ৬০ লাখ (১০ শতাংশ) মানুষের করোনাসংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। যদি এর ১শতাংশও আক্রান্ত হয়, তবে হাসপাতালগুলোতেকরোনা রোগীদের চিকিৎসা দেয়ার কোনো সক্ষমতাথাকবে না।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের(বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য অধ্যাপকনজরুল ইসলাম এ বিষয়ে বণিক বার্তাকে বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ১০থেকে ২০ শতাংশ রোগীকে আইসিইউতে রাখারপ্রয়োজন হতে পারে। এসব রোগীর শ্বাসকষ্ট থেকেমুক্তি দিতে প্রয়োজন ভেন্টিলেটর। সেই তুলনায়ভেন্টিলেটর সক্ষমতা আমাদের কোথায়? জনসংখ্যাতত্ত্বের ওপর বিচার করলে দেশে ভেন্টিলেশনসুবিধা একেবারেই কম।  করোনা পরিস্থিতিমোকাবেলায় আইসিইউ ও ভেন্টিলেটর

বেডের সংখ্যা শিগগিরই বাড়াতে হবে এবংপ্রয়োজনের চেয়ে বেশি প্রস্তুত রাখতে হবে। তা নাহলে সামনের দিনগুলোতে করোনা মহাবিপর্যয়েরআশঙ্কা তৈরি করতে পারে।

বিএসএমএমইউর সাবেক এ উপাচার্য আরোবলেন, দেশে বর্তমানে কতজন করোনা রোগীরয়েছে, এর কোনো পরিসংখ্যান নেই। মাত্র ৭০০মানুষের পরীক্ষা করে ৩৯ জন শনাক্ত করা হয়েছে।এরই মধ্যে অধিকসংখ্যক লোকের মধ্যে করোনারলক্ষণ দেখা গেছে।

এর আগে গত ২১ মার্চ প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীজাহিদ মালেক করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের জরুরিসেবা দেয়ার জন্য ১০০টি আইসিইউর কথাজানিয়েছিলেন। এভাবে পর্যায়ক্রমে প্রায় ৫০০ইউনিট স্থাপন করা হবে বলে তিনি জানান। কিন্তুকবে তা প্রস্তুত করা হবে, সে বিষয়ে সুস্পষ্ট করেবলেননি।

জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক(হাসপাতাল) মো. আমিনুল হাসান বণিক বার্তাকেবলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদেরসুচিকিৎসা নিশ্চিতে সরকারের পক্ষ থেকে ৫০০টিআইসিইউ বেড তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। এরমধ্যে ১০০টি ভেন্টিলেটর স্থাপনের কাজ চলছে।করোনা পরিস্থিতি সার্বিক বিবেচনা করে সরকার এবিষয়ে পদক্ষেপ নেবে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ৩৯ ব্যক্তির শরীরেকরোনা শনাক্ত করা গেছে। যাদের আইসোলেশনেরেখেছে আইইডিসিআর। এর মধ্যে মারা গেছে মোটপাঁচজন। গতকাল পর্যন্ত নতুন করে করোনা শনাক্তহয়নি।

[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 210 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ