কক্সবাজারে লকডাউন দিয়ে দেড়শ ফুট উঁচুতে চলছে পাহাড় কর্তন

Print
কায়সার হামিদ মানিক,স্টাফ রিপোর্টার কক্সবাজার।
করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রশাসনের ব্যস্ততাকে কাজে লাগিয়ে কক্সবাজার শহরের বৈদ্যঘোনা এলাকায় পাহাড় কাটার ধুম পড়েছে। চারপাশে লকডাউনের নামে ব্যারিকেড দিয়ে চলছে পাহাড় কাটা ও অবৈধ ভবন নির্মাণ কাজ।
জানা গেছে, কক্সবাজার শহরের ৮নং ওয়ার্ড বৈদ্যঘোনা বিবি হাজেরা মসজিদের পাশে প্রায় দেড়শ ফুট উঁচু একটি বিশাল পাহাড় রয়েছে। ইতিমধ্যে ওই পাহাড়ের উপর পাহাড় কেটে ৪/৫ টি ঘর তৈরি হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরে এই বিশাল পাহাড়ের পূর্বপাশে রোহিঙ্গা শ্রমিক দিয়ে পাহাড় কাটা চলছে। পাহাড়ে উঠার সিঁড়ির শুরুতে লকডাউনের নামে ব্যারিকেড দিয়ে উপরে চলছে পাহাড় কাটার ধুম। রাত দিন শ্রমিক লাগিয়ে পাহাড় সাবাড়ে ব্যস্ত রুপম নামের একব্যক্তি। এমনকি সেখানে ইটের দালানও নির্মাণ করা হচ্ছে কয়েকদিন ধরে। একপাশে পাহাড় কাটা অন্যপাশে দালান তৈরি অব্যাহত রয়েছে।
মো. হেলালী নামে এক প্রতিবেশী বলেন, গত ১০ দিন ধরে বিশাল পাহাড়ের একাংশ কেটে ফেলা হচ্ছে। প্রায় দেড়শ ফুট উঁচু পাহাড়টি কাটার কারণে আশপাশের বসতবাড়ি গুলো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। উঁচুতে পাহাড় কাটা অব্যাহত থাকায় নিচের মানুষজন ধসের আতঙ্কে রয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে পাহাড়ের উপর নির্মাণাধীন দালানটি। ওই পাহাড়ে উঠার শুরুতে ব্যারিকেড দিয়ে পাহাড় কাটা চলছে নিয়মিত।
পাহাড় কাটায় জড়িত রুপম বলেন, প্রায় ১১ বছর হচ্ছে পাহাড়ের উপর জায়গাটি আমি ক্রয় করেছি। বর্তমানে একটি ঘর তৈরি করছি। তেমন পাহাড় কাটা হয়নি।
জানতে চাইলে কক্সবাজার সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) শাহরিয়ার মুক্তার বলেন, খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাহাড় কর্তনকারীদের কোনো ছাড় নেই।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 79 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ