দোহারে চলমান শ্রমিক সংকটেও, নষ্ট হবেনা কৃষকের ধান

Print
দোহারে চলমান শ্রমিক সংকটেও,
নষ্ট হবেনা কৃষকের ধান
মোঃ জাকির হোসেন, জেলা  প্রতিনিধি :  ঢাকার দোহারে চলমান শ্রমিক সংকটেও কৃষকের ক্ষেতের ধান নষ্ট হওয়ার কোনও সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেন।
তিনি বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ফলে সারা দেশে লকডাউন পরিস্থিতি বিরাজমান। এ অবস্থায় দোহার উপজেলায় কৃষকের ধান ঘরে তুলতে ঢাকা-১ আসনের সাংসদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্ঠা সালমান এফ রহমানের নির্দেশে উপজেলা পরিষদ এক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।
আলমগীর হোসেন জানান, এর আওতায় প্রথমে উপজেলা পরিষদ বিষয়টি বিবেচনায় রেখে উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও পৌরসভার সাথে জরুরী বৈঠক
করে প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে ৫০জন করে লোকের নাম দোহার উপজেলার কৃষি কর্মকর্তার নিকট জমা দিতে বলা হয়েছে। এ লক্ষ্যে সর্বমোট ৪ হাজার ৫০ জন মানুষ ধান কাটাসহ ধান মাড়াইয়ের কাজে নিয়োজিত থাকবেন।বিশেষ করে ঢাকা-১ আসনের সাংসদ সালমান এফ রহমান কৃষকের ধান ঘরে তোলার ব্যাপারে অনিশ্চয়তায় থাকতে চান না।
তিনি আরও বলেন, যারা এ কাজে নিয়োজিত থাকবেন তারা কৃষক ভাইদের কাছ থেকে ন্যায্য পারিশ্রমিক তো পাবেনই। পাশাপাশি ধান কাটার শ্রমিকদের জন্য সরকারি সহায়তা প্রদান করবেন ঢাকা-১ আসনের সাংসদ সালমান এফ রহমান। এছাড়াও ঢাকা-১ আসনের সাংসদ সালমান এফ রহমানের সহযোগিতায় বাংলাদেশ কৃষি অধিদপ্তর থেকে আমরা দুটি আধুনিক ধান কাটা ও মাড়াইয়ের জন্য কম্বাইন হাাভেস্টার ও রিপার যন্ত্রের আবেদন করেছি। আশা করি দ্রুতসম্ভব আমরা আধুনিক যন্ত্র দুটি পেয়ে যাবো।
এ ব্যাপারে কৃষক,জমির মালিক, স্কিমের মালিক, সর্বোপরি দলমত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি। একইসাথে দোহার উপজেলা আওয়ামীলীগ,অঙ্গ সংগঠন ও সহযোগী সংগঠনের সকল নেতাকর্মীদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন সাংসদ সালমান এফ রহমান।
ধান কাটতে আধুনিক যন্ত্র ব্যবহার করা যায় কিনা- দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো.আলমগীর হোসেনের কাছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিষয়টি সাংসদ সালমান এফ রহমানের মাথায় রয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. মামুন ইয়াকুবকে কৃষকরা যাতে এসব যন্ত্র ব্যবহার করে সহজেই ধান কাটতে পারে এজন্য ভুক্তকির মাধ্যমে এসব যন্ত্র কৃষি বিভাগ থেকে আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের তাগিদ দেওয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.মামুন ইয়াকুব বলেন, দোহার উপজেলায় এবছর প্রায় ৪হাজার ৮৭ হেক্টর জমিতে বোরো ধান ফলন হয়েছে। ঢাকা-১ আসনের সাংসদ সালমান এফ রহমানের সহযোগীতায় বাংলাদেশ কৃষি অধিদপ্তর থেকে আমরা দুটি আধুনিক ধান কাটা ও মাড়াইয়ের জন্য কম্বাইন হাাভেস্টার ও রিপার যন্ত্রের আবেদন করেছি। আশারাখি দ্রুতসম্ভব আমরা আধুনিক যন্ত্র দুটি পেয়ে যাব।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 32 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ