দোহারে রিক্সা চালকদের দিন কাটে কষ্টে

Print

 

মোঃ জাকির হোসেন, জেলা প্রতিনিধি : লকডাউন আর বন্যা আগমনের পর থেকে সারাদেশের মত ঢাকার দোহারে রিক্সা চালকদের দিন কাটে খুব কষ্টে। পরিবারের সদস্যদের মুখে দু বেলা অন্য তুলে দিতে প্রতিদিন অক্লান্ত প্ররিশ্রম করে। তবুও তাদের বাকী থাকে মালিকের জমা খরচ। উপজেলার নারিশা ইউনিয়নের সাতভিটা এলাকার রিক্সা চালক রমজান আলী বলেন, লকডাউনের পর থেকে যাত্রীর সংখ্যে কম আর রিক্সা চালকের সংখ্যা বেশি। আগে যেখানে ত্রিশ টাকা ভাড়া দিত, এখন সেখানে যাত্রী পৌছে দিচ্ছি বিশ টাকায়। তবুও যাত্রী পাওয়া যায়না। যদিও দু একজন যাত্রী আসে, চালকের সংখ্যা বেশি হওয়ায় বিশ টাকার ভাড়া দশ টাকায় যেতে হয়। দক্ষিণ শিমুলিয়ার রিক্সা চালক আবুল কালাম বলেন, রিক্সার মালিককে জমা দিতে হয় ২০০, সারাদিনে রোজগার ৫০০ টাকা। নিজের পকেট খরচ হয় দিনে ৫০ টাকা, আড়াইশত টাকা দিয়ে কি আর পাঁচজনের সংসার চলে। মেঘুলা এলাকার জব্বার জানায়, দুপুরে বাড়িতে যাওয়া হয়না, বাড়িতে গেলেই বউ বলে তেল নাই, ডাল নাই ইত্যাদি। এজন্য এ বেলা দশ টাকা দিয়ে দুইটা শিঙ্গারা বা পুরী খেয়ে দিন শেষে রাতে বাড়ি যাই। তখন বউ যদি ঐ সবের কথা বলে, বলি কাল নিয়ে আসবো। রাসেল, খালেক ও রিপনসহ সকলের দাবি, যদি সরকার একটু নজর দিত বা প্রতিমাসে রিক্সা চালকদের জন্য ত্রাণের ব্যবস্থা করে, তাহলে কিছুটা হলেও আমাদের ভাগ্য বদল হত।
[ প্রিয় পাঠক, আপনিও বিডিসারাদিন24 ডট কম অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইল, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, রান্নার রেসিপি, ফ্যাশন-রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন- bdsaradin@gmail.com-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে। নারীকন্ঠ এবং মত-দ্বিমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে  bdsaradin24.com আইনগত বা অন্য কোনো ধরণের দায় গ্রহণ করে না। ]

প্রতি মুহুর্তের সর্বশেষ খবর পেতে এখানে ক্লিক করে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন

(লেখাটি পড়া হয়েছে 66 বার)


Print
এই পাতার আরও সংবাদ